শুক্রবার, ১৬ অক্টোবর ২০২০, ১২:০৮ অপরাহ্ন

আইনি লড়াইয়ে বাংলালিংক এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন

রিপোটারের নাম / ১৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : সোমবার, ২৪ আগস্ট, ২০২০
আইনি লড়াইয়ে বাংলালিংক এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন

সুপ্রিম কোর্ট গড়ালো বাংলালিংক এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের (বিএলইইউ) রেজিস্ট্রেশন। বাংলাদেশ হাইকোর্ট বিভাগের চেম্বার জজ আদালত বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান বৃহস্পতিবার বাংলালিংক এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের আবেদনটি সুপ্রিম কোর্টের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির জন্য প্রেরণ করেন।

সেই সঙ্গে বাংলালিংক ডিজিটাল কমিউনিকেশনের দায়েরকৃত রিট পিটিশন (নাম্বার ২৬১৫/২০২০ এর) রায়ের প্রতি স্থিতি অবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ দেন।

এর আগে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ এবং বিচারপতি মোহাম্মদ মাহমুদুল হাসান তালুকদার বাংলালিংক ডিজিটাল কমিউনিকেশন লিমিটেডকে পক্ষভুক্ত করে শ্রম আদালতে মামলাটি শুনানির আবারো নির্দেশ দেন।

বাংলালিংক এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের অ্যাপিলেট ডিভিশনে গত ২৬ জুলাই পিটিশন ফর লিভ টু আপিল (নাম্বার ৯৪৪/২০২০) দায়ের করেন।

বৃহস্পতিবার বাংলালিংক ডিজিটাল কমিউনিকেশনস লিমিটেড এবং বাংলালিংক এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের উভয় পক্ষের আইনজীবীদের শুনানি প্রেক্ষিতে চেম্বার জজ আদালতের বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান মামলাটি সুপ্রিম কোর্টের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির জন্য প্রেরণ করেন। সেইসঙ্গে হাইকোর্ট বিভাগের প্রদত্ত রায়কে স্থিতি অবস্থা বজায় রাখার নির্দেশ দেন।

প্রসঙ্গত, মোবাইল ফোন অপারেটর বাংলালিংকের কর্মীদের ট্রেড ইউনিয়ন বাংলালিংক এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন গত চার বছর আইনি লড়াই শেষে গত ২৩ জানুয়ারি প্রথম শ্রম আদালত থেকে ইউনিয়নে রেজিস্ট্রেশনের রায় পেয়ে গত ৯ ফেব্রুয়ারি সরকারের শ্রম অধিদপ্তর কর্তৃক রেজিস্ট্রেশন প্রাপ্ত হয়, যারা রেজিস্ট্রেশন নাম্বার ২২০৬।

বাংলালিংক এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের উক্ত রেজিস্ট্রেশনের প্রেক্ষিতে বাংলালিংক ডিজিটাল কমিউনিকেশন হাইকোর্ট বিভাগে ইউনিয়নের রেজিস্ট্রেশন বাতিল, কার্যক্রম স্থগিত ও কোম্পানি পক্ষে শ্রম আদালতে মামলাটি পূর্ণ শুনানির জন্য রিট পিটিশন (নাম্বার ২৬১৫) দায়ের করেন।

এ ব্যাপারে বাংলালিংক এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের সভাপতি গোলাম মাহমুদ সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক মো. আশফাক হাসান খান এক যৌথ বিবৃতিতে জানান, বাংলালিংক এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন তার কর্মীদের জন্য উন্নত কর্মপরিবেশ এবং কর্মক্ষেত্রে শ্রম আইনের বাস্তবায়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এই আইনি প্রক্রিয়া তার ধারাবাহিকতার একটি অংশ বলে তারা উল্লেখ করেন।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে মোবাইল ফোন অপারেটর কোম্পানিগুলোর প্রথম গ্রামীণফোন এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন গঠিত হয়। এরপর মোবাইল অপারেটরে দ্বিতীয় ট্রেড ইউনিয়ন হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে বাংলালিংক এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ